রাজা-রাণীদের অদ্ভুত ভয়ানক অভ্যাস

অতীত কিংবা বর্তমান সময়ে রাজ পরিবার ও তাদের সদস্যরা সর্বদা সম্মান, ঐতিহ্য এবং মহিমার সাথে যুক্ত।
তাদের জীবনের উপরের দিকটা দেখলেও প্রায় সবারই তাদের ভেতরের খবর অজানা।
বেশ কিছু রাজপরিবারের কিছু ঘৃণ্য অভ্যাসের প্রতি আসক্ত ছিলেন, এর জন্য তারা ইতিহাস জুড়ে হয়েছেন আলোচিত এবং সমালোচিত।

আসুন আজ ইতিহাসের পাতায় থাকা তেমনি কিছু ঘটনা জানি।

ক্যাস্টিল রাজ্যের রাণী হুয়ান্না সবসময় তার স্বামীর পচা লাশ নিয়ে ঘুরতেন!

হুয়ান্না ও তার মৃত স্বামী Artist: Charles de Steuben (1788–1856)

রাজ পরিবারের সদস্যরা প্রায়ই রাজনৈতিক কারণে বিয়ে করতেন এবং তাদের বেশিরভাগই বিয়ে করে প্রেমহীন জীবনযাপন করতেন। খুব কমই স্বামী-স্ত্রী একে অপরকে ভালবাসতো। এরকম একটি উদাহরণ হলো ক্যাস্টিল রাজ্যের রাণী হুয়ান্না। তিনি তার স্বামী ফিলিপ কে ভালোবাসতেন না। তবে মৃত্যুর পর এমন ভাব করতেন যে তিনি তার স্বামীকে খুব ভালোবাসেন। তিনি তার প্রিয়তমাকে ‘দ্যা হ্যান্ডসাম’ ডাকনাম দিয়েছিলেন। আর তিনি কাউকে তার স্বামীর লাশ দাফন করতে দেন নি।
দেহ পচন শুরু করার পরেও,হুয়ান্না এক বছরেরও বেশি সময় ধরে তার স্বামীর দেহ তার ঘরে রাখার বিষয়ে অনড় ছিল। এই পুরো সময় জুড়ে, তিনি ভান করেছিলেন যে তার স্বামী এখনও জীবিত এবং ভাল আছেন। আর তাই তিনি প্রসাদের সকল কে সতর্ক করে বলেন, তারা যেনো রাজাকে সম্মান করে এবং তার ঘুমের কোনো বিঘ্ন না ঘটায়।

অতিরিক্ত খাবার খেয়ে মৃত্যু হয়েছিল রাজা অ্যাডলফ ফ্রেডরিকের

Adolf Fredrik by Lorens Pasch d.y. - no frame (Nationalmuseum, 15309).png
Credit: wikipedia

সুইডিশ রাজা অ্যাডলফ ফ্রেডরিক ‘সেমলা’ ক্রিম রোল নামে একটি স্থানীয় মিষ্টির প্রতি আসক্ত ছিলেন। তাই একবার, ক্যাভিয়ার, গলদা চিংড়ি এবং বিভিন্ন সামুদ্রিক খাবার ভোজনের পরে, রাজা এক সাথে এক ডজনেরও বেশি ‘সেমলা’ খেয়ে ফেলেছিলেন।
বলাই বাহুল্য, বিপুল পরিমাণ খাবার রাজা আর হজম করতে পারেন নি।
কিছুক্ষণ বাদে অনুভব করেন তার পেট খারাপ হয়েছে। সময় বাড়ার সাথে সাথে অবস্থা আরো খারাপ হতে থাকে। একটা সময়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। ইতিহাসের পাতায় তিনিই একমাত্র রাজা যিনি অতিরিক্ত খাবার খাওয়ার ফলে মৃত্যুবরণ করেছেন।

চার্লস ষষ্ঠ প্রায় অর্ধ বছর এক পোশাক পোশাক পড়ে কাটিয়ে ছিলেন

আরো পড়ুন   শ্বেতাঙ্গ দাস: ইতিহাসের পাতা থেকে মুছে ফেলা এক অধ্যায়
King Charles VI
Credit: Wikipedia comons

ফরাসি রাজা ষষ্ঠ চার্লস মানসিকভাবে খুব অস্থির প্রকৃতির ছিলেন। তিনি বিশ্বাস করতেন তিনি কাঁচের তৈরি। কারো সাথে তার ধাক্কা লাগলে তার শরীর ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে যাবে। আর তাই তিনি তার শরীরের একটা পেশিও নড়াচড়া করাতেন না।

৫ মাসেরও বেশি সময় ধরে, চার্লস নড়াচড়া করেননি এবং তিনি দীর্ঘ ৫ মাস এক জায়গায় বসে কাটিয়েছেন। এই সময়ে তিনি গোসল করেননি বা পোশাক পরিবর্তন করেননি।

চতুর্দশ লুই তার সিংহাসনের উপর টয়লেটের সিট বসিয়েছিলেন

Portrait of Louis XIV aged 63
রাজা লুই চতুর্দশ Artist: Hyacinthe Rigaud, 170

ফ্রান্সের রাজা লুই চতুর্দশ ইতিহাসের সবচেয়ে দুর্গন্ধযুক্ত নোংরা শাসক ছিলেন। তার সিংহাসন ছিল একটি অস্থায়ী টয়লেট সিট, যা তিনি সর্বদা ব্যবহার করতেন।

এ ব্যাপারটাকে আরো চমকপ্রদ করতে তিনি তার জীবদ্দশায় মাত্র তিনবার গোসল করেছিলেন।
একটা সময়ে প্রসাদের কর্মীরা গন্ধে অতিষ্ঠ হয়ে রাজপ্রাসাদ ত্যাগ করা শুরু করলে, লুই তার প্রাসাদটি সুগন্ধি ফুল দিয়ে পূর্ণ করে তুলেন।

রাজপ্রাসাদের গন্ধ দূর করতে ফুল ব্যবহার করলেও তিনি শরীরের গন্ধ দূর করতে নিজে গোসল করেন নি। তার পরিবর্তে তিনি তার জামাকাপড় সেই সময়ের সেরা পারফিউমের মধ্যে ডুবিয়ে সুগন্ধি করে ব্যবহার করতেন।

Featured Image Credit: History Collection

Leave a Comment