You are currently viewing কষ্টের ক্যাপশন : ১০০ টি সেরা কষ্টের ক্যাপশন

কষ্টের ক্যাপশন : ১০০ টি সেরা কষ্টের ক্যাপশন

জীবনে সুখ যেমন আছে, তেমনি দুঃখ ও থাকবে। সেই দুঃখের অনুভূতি প্রকাশের ভাষা সবার থাকে না। আর তাই জীবনের দুঃখ কষ্ট নিয়ে তেমনই কিছু সেরা ক্যাপশন থাকছে এই পোস্টে।



কষ্ট মূলত দুটো জিনিসে এক কিছু হারাতে দুই জীবনকে সেখান থেকে নতুন করে শুরু করতে।



কষ্ট হলো সমুদ্রের মতো এটা সর্বদাই প্রবাহিত হতে থাকে, কখনো এটা আসে শান্ত পানির মতো আবার কখনো সাইক্লোন এর মতো ঝড় নিয়ে।






আপনার হৃদয় কত করুণভাবে ব্যথিত হয়েছে তা কখনো এই পৃথিবী দেখবে না। আপনার কষ্টের জন্যও কখনো তা থেমে থাকবে না।




যখন কাছের কেউ চলে যায় তখন পুরো পৃথিবীটাই শুন্য মনে হয়। এর চেয়ে আর কষ্টের কি হতে পারে?




সার্থপর ব্যক্তিরা কখনোই অন্যের দুঃখ কষ্ট অনুভব করতে পারে না।






কষ্ট খারাপ কাজের মতো কিছু নয় তবে তা তোমার কাছে থেকে অনেক কিছুই নিয়ে যায়।




অন্যের কষ্টে কষ্ট পাওয়া কোনো দুর্বলতা নয় বরং তা হলো কোমল হৃদয়ের পরিচায়ক।




রাত যত গভীর তারাগুলো ততই উজ্জ্বল হয় তেমনিভাবে দুঃখ যত বেশি হয় স্রষ্টা ততই নিকটে চলে আসেন।






কষ্ট পেয়ো না। তুমি যা হারিয়েছ তা কোনো না কোনো ভাবে তোমার কাছে উত্তম কিছু আনবেই।




কষ্ট তোমাকে পরিবর্তন করে না বরং এটা তোমার ভিতরের তুমিটাকে বের করে আনে।



কিছু কিছু মানুষের জন্য এ পৃথিবীটা কোন উপযুক্ত স্থান নয়, তাদের জন্য এ পৃথিবীটা যেন এক সমুদ্র জল।





নিজের বোকামি বুঝতে পারার পর কারো দুঃখ হয়, কারো হাসি পায়।



বেদনার পায়ে চুমু খেয়ে বলি এইতো জীবন, এইতো মাধুরী, এইতো অধর ছুঁয়েছে সুখের সুতনু সুনীল রাত!




একজন আহত ব্যক্তি তার যন্ত্রনা যত সহজে ভুলে যায়, একজন অপমানিত ব্যক্তি তত সহজে অপমান ভোলে না।






প্রতিদিন কিছু ইচ্ছেকে পুড়িয়ে মারি প্রতিদিন কিছু ইচ্ছেকে পাঠাই নির্বাসনে ভালবাসা কি ভীষণ প্রতারক হৃদয় ভেঙেছে যার সেই জানে।




সব কিছুকেই একটি নির্দিষ্ট সংজ্ঞায় সংজ্ঞায়িত করা যায়, কিন্তু কষ্টকে কোন নির্দিষ্ট সঙ্গায় ফেলা যায় না। কারন কষ্ট এমন এক জিনিস যা ব্যক্তি থেকে ব্যক্তি ভিন্ন হয়।



যারা নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকে তারা কখনও অন্যের দুঃখ কষ্টকে উপলদ্ধি করতে পারেনা।





দুঃখ মানুষের জীবনের একটি ব্যক্তিগত গান, যা মানুষ নিজে ছাড়া অন্য কেউ শোনে না।




সবাই তোমাকে কষ্ট দিবে, তোমাকে শুধু এমন একজন কে খুঁজে নিতে হবে যার দেয়া কষ্ট তুমি সহ্য করতে পারবে।



সবচেয়ে খারাপ একাকিত্ব হলো, নিজেকেও ভালো না লাগা!





একা থাকতে শিখে গেলে একাকিত্ব বা হতাশা কোনো ব্যাপার না! হয়তো সাময়িক কষ্ট পাবেন; কিন্তু আপনি ভালো থাকবেন।



একা থাকা অনেক ভালো! কারণ, একাকিত্ব কখনো বিশ্বাসঘাতকতা করে না।




নিঃশব্দ রাতে একাকিত্ব প্রকাশ করা যায়, তখন তা কেউ জানে না! একাকী যায় কাঁদা, কেউ তা শুনতে পায় না।





মানুষের সবচেয়ে অকৃত্রিম বন্ধু আর সবচেয়ে ভয়ঙ্কর শত্রুর নাম ‘একাকিত্ব’।




যেদিন থেকে একা একা বাঁচতে শিখে যাবে, নিজেই নিজের বন্ধু হয়ে যাবে!!! সেদিন থেকে দেখবে, এ পৃথিবীতে তোমার আর কাউকেই প্রয়োজন হবে না।




কোনোদিন একাকিত্বের সময়….. পাশে বসলে শোনাবো! স্বপ্ন দেখার থেকে শুরু; স্বপ্ন ভাঙার সেই গল্পটা।





একা থাকাকে একাকিত্ব বলে না! সবার কাছে অবহেলিত হয়ে, খেয়াল রাখার কাউকে না পাওয়াকে, একাকিত্ব বলে।



কিছু অনুভূতি লিখে প্রকাশ করা যায় না!একাকিত্বের অন্তরালে থেকে যায় নীরবতা।



যে তার নিজের জীবন, অন্যের থেকে বেশি ভালোবাসে; সে কখন একাকিত্বের ভয় পায় না।





অতিরিক্ত প্রত্যাশা জীবনে হতাশ ডেকে আনে! আর অতি নির্ভরশীলতা ডেকে আনে, চরম একাকিত্ব..!




শূন্যতা অনুভব করা যদি ভালোবাসা হয়। তাহলে প্রতিটা মুহূর্তে তোমায় ভালোবাসি।



বদলাতে চাইনি কিন্তু তোর অবহেলা বদলাতে বাধ্য করলো শেষ পর্যন্ত।





কখনোই সেই মানুষটাকে কষ্ট দিও না, যাকে কষ্ট দিলে তার দ্বিগুণ কষ্ট তোমার নিজের হয়।




কখনো কারো প্রিয়জন ছিলাম না। সব সময় সবার প্রয়োজন টাই ছিলাম।



ভালোবাসা তো সেটাই যাকে ভালোবাসার পর অন্য কাউকে ভালোবাসার ইচ্ছে টা মরে যায়।





মৃত্যু যেখানে সময়ের ব্যাপার মাত্র, সেখানে রঙিন স্বপ্ন বড়ই বে~মানান।



ভালোবাসি বলে বিশ্বাস রাখি, তুই আবার আমার মাঝে ফিরে আসবি।




পাশে দাঁড়িয়ে ভরসা দেওয়ার লোক নেই। সামনে দাঁড়িয়ে পথ দেখানোর লোক নেই। কিন্তু পেছনে দাঁড়িয়ে সমালোচনা করার লোকের অভাব নেই।






চোখের জলের যেখানে কোনো মর্যাদা নেই, সেখানে মনের মাঝের লুকোনো আবেগ ও মূল্যহীন!




প্রয়োজন ফুরিয়ে গেলে জানিয়ে দিও – অভিনয় করো না!




পৃথিবীতে সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদটির নাম হচ্ছে সুখ। যার ক্রেতা সবাই কিন্তু বিক্রেতা শুধু একজন।





সব থেকে বড় নেশা হলো কারোর মায়াতে আবদ্ধ হয়ে যাওয়া।



সুখী তো তারাই হয়, যারা অন্যের বুকে ছুরি মেরে ভালো থাকতে জানে।




একদিন অনেক গুলো অভিযোগ লিখে হারিয়ে যাবো অনেক দূরে কোথাও।





যেখানে ভালোবাসা যত বেশি সেখানে অভিমানের মাত্রাটা তত বেশি।




বুঝতে পারছি না
কিছুতে ঠকায় কে?
মানুষ নাকি ভাগ্য?



যে তোমাকে মনে রাখার মত অসংখ্য স্মৃতি উপহার দিয়েছে তাকে ভুলে যাওয়া আসলেই অনেক কঠিন!






কলিজায় জায়গা পাওয়া মানুষগুলোই এক সময় কলিজায় আঘাত করে।



কথা দিতে সবাই পারে কিন্তু, কথা রাখতে সবাই পারে না।



মানুষের প্রিয় হতেও অর্থনৈতিক যোগ্যতা লাগে, অর্থশূন্য মানুষ কখনো কারো প্রিয় হয় না।





মানুষ তখনই সত্যিকার দরিদ্র হয়ে পড়ে, যখন তাকে একাকীত্ব ঘিরে ধরে।




টাকা মানুষকে আনন্দ দিতে পারে কিন্তু কখনোই সুখ দিতে পারবে না।



প্রচণ্ড অপমান নিয়ে যারা হারিয়ে যায় । তারা কিন্তু শত অনুরোধেও আর ফিরে আসে না।







কেউ ভুলে যায় না…প্রয়োজন শেষ…তাই আর যোগাযোগ রাখে না।



রাত যত গভীর হয়, ঘুমিয়ে পড়ে শহর, শুধু জেগে থাকে একলা মন, কারো অপেক্ষায় গোনে প্রহর।




ঘুম কি অসাধারণ জিনিস যদি আসে সবকিছু ভুলিয়ে দেয় । আর যদি না আসে তো সবকিছু মনে করিয়ে দেয়।





কাউকে এতটা অবহেলা করো না যে, সে তোমাকে ছাড়া বাঁচতে শিখে যায়।



থাকলে কাছে কে আর বোঝে । কিন্তু হারিয়ে গেলে সবাই খোঁজে।



চুপ থাকতে শিখে গেছি এখন আর অধিকার নিয়ে তর্ক করি না।






সুখ আসে ক্ষণিকের জন্য আবার তা চলে যায়, শুধু কষ্ট নামক বন্ধু চিরতরে প্রতিটা মানুষের কাছেই থেকে যায়।




সম্পর্ক চলাকালীন সময় নয়। সম্পর্ক ভাঙার পর বুঝতে পারবেন কাকে কতটা প্রয়োজন ছিল।




পৃথিবীতে যদি কঠিন বলে কিছু থাকে. তাহলে সেটা হলো মানুষ চেনা।





প্রয়োজন শেষ হলেই সম্পর্কের পরিবর্তন শুরু হয়ে যায়।



যাকে পাবে না তাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখা, নিজেকে কষ্ট দেওয়া ছাড়া আর কিছুই না!



মধ্যবিত্ত পরিবারের সস্তান গুলোর পকেট ভরা টাকা না থাকুক । বুক ভরা স্বপ্ন ঠিক আছে।






পেন্সিল ছেড়ে যেদিন কলম ধরেছি সেদিন থেকে ভুল শুধরানোর সুযোগটা হারিয়ে ফেলেছি।



যে যাবার সে যাবেই, মাঝখানে আপনার জীবনটা এলোমেলো করে দিয়ে যাবে।



একটা কালো মেয়ে
আর পকেট খালি ছেলেই বুঝে।
বাস্তবতাটা কি জিনিস।





দেহের মৃত্যু হলে সবাই কাঁদে কিন্তু মনের মৃত্যুতে শুধু নিজেকেই কাঁদতে হয়।



মাঝে মাঝে কিছু মানুষ প্রমাণ করে দেয়— তারা বিশ্বাস আর ভালোবাসার যোগ্য নয়।