You are currently viewing শরৎচন্দ্রের প্রেমের উক্তি

শরৎচন্দ্রের প্রেমের উক্তি

শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ৩১ ভাদ্র, ১২৮৩ – ২ মাঘ, ১৩৪৪ (১৫ সেপ্টেম্বর ১৮৭৬ – ১৬ জানুয়ারি ১৯৩৮) ছিলেন একজন বাঙালি লেখক, ঔপন্যাসিক, ও গল্পকার। তিনি দক্ষিণ এশিয়া এবং বাংলা ভাষার অন্যতম জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক।
এই ব্লগ পোস্টে শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের উপন্যাসের কিছু অসাধারণ প্রেমের উক্তি তুলে ধরছি।

১#

যাহাকে ভালোবাসি সে যদি ভালো না বাসে,এমনকি ঘৃণাও করে তাও বোধ করি সহ্য হয়! কিন্তু যাহার ভালবাসা পাইয়াছি বলিয়া বিশ্বাস করেছি, সেইখানে ভুল ভাঙ্গিয়া যাওয়াটাই সবচেয়ে নিদারুন। পূর্বের টা ব্যাথা দেয়। কিন্তু শেষের টা ব্যাথাও দেয়, অপমান ও করে।

২#

ভালবাসাটার মতো এতবড় শক্তি , এতবড় শিক্ষক সংসারে বুঝি আর নাই। ইহা পারে না এতবড় কাজও বুঝি কিছু নাই।

৩#

রাগ করে শোয়া যেতে পারে কিন্তু রাগ করে ঘুমনো যায় না| বিছানায় পড়ে ছটফট করার মত শাস্তি আর নেই|

৪#

মেয়েরা পুরুষের হৃদয় এক নিমিষেই
চিনে নিতে পারে, এটি বিধাতার দেয়া শক্তি। অথচ
আশ্চর্যের ব্যাপার ওরা নিজেদের হৃদয়
নিজেরা চিনতে পারে না”।

৫#

আমি যে মেয়েমানুষ!
মেয়েমানুষের কি কখনো অসুখ হয়, না সে মরে?
কোথায় শুনেচ, অযত্নে অত্যাচারে মেয়েমানুষ মরে গেছে?

৬#

ভালোবাসার ক্ষেত্রে
সে’ই বুদ্ধিমান,
যে ভালোবাসে বেশি
কিন্তু প্রকাশ করে কম!

৭#

“বড় প্রেম শুধু কাছেই টানে না—ইহা দূরেও ঠেলিয়া ফেলে।

৮#

যাহাকে ভালোবাসি সে যদি ভালো না বাসে,
এমনকি ঘৃণাও করে তাও বোধ করি সহ্য হয়!
কিন্তু যাহার ভালবাসা পাইয়াছি
বলিয়া বিশ্বাস করেছি, সেইখানে ভুল
ভাঙ্গিয়া যাওয়াটাই সবচেয়ে নিদারুন।
পূর্বের টা ব্যাথা দেয়।
কিন্তু শেষের টা ব্যাথাও দেয়, অপমান ও করে।

__ শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় (চরিত্রহীন)

৯#

কপালের যেখানটায় বসন্তের দাগ ছিল; সবাই চোখ ফিরিয়ে নিত ঘেন্নায়! সেখানটায় চুমো খেয়ে বুঝিয়ে দিতে হয় ভালোবাসা জিনিসটা সবার জন্য আসেনি।

১০#

আমি ঠকিনি, কারণ আমি ভালোবাসতে পেরেছিলাম। কিন্তু ঠকেছে সে, যে ভালোবাসতে পারেনি।

১১#

ভালোবাসার ক্ষেত্রে সে’ই বুদ্ধিমান, যে ভালোবাসে বেশি কিন্তু প্রকাশ করে কম!

১২#

তোমাকে পাবার জন্য যা করেছি তার অর্ধেক করলেও বোধহয় উপরওয়ালাকে পেয়ে যেতাম তবু তোমাকে পেলাম না..!

১৩#

যার কাছে তোমার অভিমানের কোন মূল্য নেই, তার কাছে অভিমান প্রকাশ করাটা শুধু বেমানানই নয়! লজ্জার, অমর্যাদার আর অপমানেরও।

আরো পড়ুন:  আর্নেস্ট হেমিংওয়ের ৪০ টি বিখ্যাত উক্তি

১৪#

যখন তুমি কাউকে ভালোবাসবে, তখন বুঝবে ব্যথা কী..!!

১৫#

যাকে তাকে গছিয়ে দেওয়ার নামই বিবাহ নয়! মনের মিল না হলে বিবাহ করাই ভুল।

১৬#

মেয়েরা পুরুষের হৃদয় এক নিমেষে চিনে নিতে পারে!! এটা বিধাতার দেওয়া শক্তি। অথচ আশ্চর্যের ব্যাপার, নিজেদের হৃদয় নিজেরা চিনতে পারেনা।

১৭#

কোনো প্রেমই কোনো দিন ঘৃণার বস্তু হতে পারে না।

১৮#

মনের বার্ধক্য আমি তাকেই বলি, যে মন সুমুখের দিকে চাইতে পারে।

১৯#

নারীর এক জাতীয় রূপ আছে, যাহাকে যৌবনের অপর প্রান্তে না পৌছিয়া পুরুষ কোনো দিন দেখিতে পায় না।

২০#

যে গোপনে আসিয়াছিল, তাহাকে গোপনেই যাইতে দিলাম! কিন্তু এই নির্জন নিশীথে সে যে তাহার কতখানি আমার কাছে ফেলিয়া রাখিয়া গেল, তাহা কিছুই সে জানিতে পারিল না।